পুরুষের প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া কেন হয় বিস্তারিত

পুরুষের ক্ষেত্রে প্রসাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া এটি একটি কমন সমস্যা বেশিরভাগ মানুষেরই এই সমস্যা হয়ে থাকে কিন্তু লজ্জায় কাউকে বলতে পারে না। অনেকেই জানতে চাই পুরুষের প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া কেন হয় এবং প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া ঔষধ কি তাই এই সকল প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন আজকের এই আর্টিকেলে।
পুরুষের প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া কেন হয় বিস্তারিত
আপনি যদি একজন পুরুষ হয়ে থাকেন এবং প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া নিয়ে বেশ যন্ত্রণার ভিতরে আছে তাহলে ঠিকই জায়গায় এসেছেন কারণ এই পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়লে পুরুষের প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া কেন হয় এবং পুরুষের প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া হলে করণীয় কি ইত্যাদি আরো অনেক বিষয়ে জানতে পারবেন। 

প্রসাবে জ্বালাপোড়া কিসের লক্ষণ

আমাদের আরটিকালের মূল বিষয় পুরুষের প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া কেন হয় এবং জ্বালাপোড়া ঔষধ সে সম্পর্কে জানার আগে আমাদের প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া কিসের লক্ষণ সে সম্পর্কে আগে জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। 

চলুন তাহলে প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া কিসের লক্ষণ হতে পারে সে সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক। প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া এই সমস্যায় নারী এবং পুরুষ উবাই ভুগে থাকেন। প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া এই সমস্যাটি ২৫ থেকে ৪০ বছর বয়সীদের বেশি দেখা যায়। প্রসাবে জ্বালাপোড়া অন্যতম লক্ষণ গুলোর মধ্যে হল ইউরিনারি ইনফেকশন।


ইউরিনারি ইনফেকশনের কারণে কিডনিতে ব্যথা, তলপেটে ব্যথা, কোমর ব্যথা এবং প্রসাবে জ্বালাপোড়া হয়। এছাড়াও যদি আপনি পানি খাওয়ার কারণেও প্রসাবের জ্বালাপোড়া হতে পারে। তাই বেশি বেশি পানি খাওয়া উচিত কারণ বেশি বেশি পানি খেলেও ইউরিনারি ইনফেকশন থাকলে দূর করে।আশা করি বুঝতে পেরেছেন প্রসাবে জ্বালাপোড়া কিসের লক্ষণ।

পুরুষের প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া কেন হয়

মহিলা এবং পুরুষের উভয়েরই বর্তমান সময়ে একটি বিশেষ রোগ প্রসাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া।অনেকেরই মনে প্রশ্ন থাকে বা ইন্টারনেটে সার্চ দিয়া আমাদের এই পোস্টটিতে এসেছেন পুরুষের প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া কেন হয় সেটা জানতে। তাই চলুন জেনে নেওয়া যাক প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া কেন হয় সে বিষয়ে।

৪ টি কারণে পুরুষের প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া হয় তা হলঃ
  • ইউরিনারি ইনফেকশনঃ ইউরিনারি ট্র্যাক ইনফেকশন এর কারণে ঘন ঘন প্রস্রাব হওয়া, তলপেটে ব্যথা, কোমর ব্যথ, প্রসাবে দুর্গন্ধ, প্রসাবে জ্বালাপোড়া ইত্যাদি সমস্যা হয়।
  • কিডনিতে পাথর হওয়াঃ কিডনিতে পাথর হওয়ার কারণে বমি হওয়া, জ্বর, ব্যথা সব সময় পরিবর্তন হওয়া, অল্প অল্প করে প্রস্রাব হওয়া এবং জ্বালাপোড়াও হতে পারে।
  • ওষুধের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার কারণেঃ ইউরিনারি ব্লাড ক্যান্সার চিকিৎসার ক্ষেত্রে যে ওষুধটি ব্যবহার করা হয় সেই ওষুধের পার্শ্ব প্রতিকার কারণে প্রসাবে জ্বালাপোড়া হতে পারে।
  • প্রোস্টেট ইনফেকশনঃ প্রসাব করতে অসুবিধা, বীর্যপাতের অসুবিধা হওয়া, জ্বালাপোড়া ঘন ঘন, প্রসাব হওয়া ইত্যাদি।
ওপারের উল্লেখিত এ কয়টি কারণে ও আপনার প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া হতে পারে তাই দ্রুত একজন ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে চিকিৎসা করানো উচিত। আশা করি বুঝতে পেরেছেন পুরুষের প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া কেন হয়।

পুরুষের প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া হলে করণীয় কি

পুরুষের প্রসাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া এরক্তি খুবই একটি কমন রোগ। আসলেই প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া এটা কতটা কমন সেটাই আজকের এই আর্টিকেলে আলোচনা করব। ইউরিনারি ইনফেকশন বা কিডনির রাস্তায় ইনফেকশন যা সবচাইতে কমন একটি ইনফেকশন। দ্বিতীয় ইনফেকশনটি হচ্ছে এমন কোন মহিলা নাই যে তার ইউরিনারি ইনফেকশন হয়নি। 


এছাড়াও যারা একটু বয়স্ক মানুষ কিংবা যাদের ডায়াবেটিস থাকে বা অন্য কোন কারণে শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকে যেমন ক্যান্সার থেরাপি বা কিডনি ডিজিট এবং এমন কোন এক ওষুধ ব্যবহার করে যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায় সে ক্ষেত্রে ইনফেকশন হতে পারে ফলে প্রসবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া হয়। 

পুরুষের প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া করণীয়, ঘরোয়া ৭টি উপায় নিচে দেয়া হলঃ

  • রাত্রে শোয়ার আগে বেশি পরিমাণে পানি খেতে হবে। 
  • প্রস্রাব আসলে চেপে রাখা যাবে না।
  • প্রতিদিন প্রায় .২ থেকে ৩ লিটার অর্থাৎ ১২ থেকে ১৬ গ্লাস পানি খেতে হবে।
  • যদি ডায়াবেটিস থাকে তাহলে ডায়াবেটিস কমাতে হবে।
  • প্রচুর পরিমাণে শাকসবজি খান।
  • দই খান।
  • তলপেটে গরম চাপ দিন।

প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া ঔষধ

অনেকে আছেন যারা প্রসাবে রাস্তায় জ্বালাপোড়ায় সমস্যায় ভুগছেন কিন্তু কি করবেন কিছু ভেবে পাচ্ছেন না প্রথমেই বলি একজন ভালো ডাক্তারের পরামর্শ নিন এবং নিচে কয়েকটি ওষুধের নাম উল্লেখ করা হলো যে ওষুধগুলি ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী খেতে পারেন কিন্তু ওষুধগুলোর নাম দেখে নিজেই উস্তাদি করে খেয়ে ফেলবেন না ফলে এক করতে যে আরেক হয়ে যাবে। চলুন তাহলে প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া ঔষধ এর নাম কি সেগুলো জেনে নেওয়া যাক।

প্রসাবের ইনফেকশনের ক্ষেত্রে নিচের ওষুধগুলি ডাক্তারের পরামর্শে খেতে পারেঃ
  1. সেফালেক্সিন 
  2. সেফট্রিয়াক্সোন
  3. ট্রাইমেথোপ্রিম 
  4. সালফামেথোক্সাজোল 
  5. ফসফোমাইসিন 
  6. নাইট্রোফুরানটয়েন 
আশা করি প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া ঔষধ গুলোর নাম জানতে পেরেছেন কিন্তু আরেকটি কথা এই ওষুধগুলো ফার্মেসিতে পেয়ে যাবেন কিন্তু একজন ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া এ ওষুধগুলি খাবেন না কারণ এই ওষুধগুলি এন্টিবায়োটিক হতে পারে আর একজন ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়াই ওষুধগুলি খেলে আপনার কিডনি ছাড়া আরো অনেক রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে শরীরে। 

তাছাড়া যদি আপনি ওষুধটি খেতে না চান তাহলে উপরের উক্ত আলোচনায় পুরুষের প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া হলে করণীয় কি সে সম্পর্কে আপনাদের আগেই জানিয়েছি সেগুলো অনুসরণ করলে আশা করা যায় জ্বালাপোড়া কিছুটা কমবে।

ছেলেদের প্রস্রাবের রাস্তায় ব্যাথা

ছেলেদের প্রস্রাবের রাস্তায় ব্যাথা সহ জ্বালাপোড়া অনেকেরই হয়ে থাকে। বিশেষ করে যারা কোম্পানি খান তাদের এই সমস্যাটা বেশি হয়ে থাকে। প্রস্রাবের রাস্তায় ব্যাথা, জ্বালাপোড়া এবং অস্থিতিবোধ এটা কোন রোগ নয় এবং রোগের উপসর্গ নয় এটি নারী এবং পুরুষের উভয়েরই হয়ে থাকে। 


তবে ছেলেদের চাইতে মহিলাদের এই সমস্যাটি বেশি হয়ে থাকে। এটি মূলত ইউরিনারি ট্র্যাক ইনফেকশনের কারণে হতে পারে অথবা বিভিন্ন কারণে হতে পারে তাই একজন ডাক্তারের পরামর্শ নিন এর পাশাপাশি বেশি বেশি পানি পান করুন, শাকসবজি খান, ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার খান, তলপেটে গরম সেক দিন।

এবং প্রসাব কখনো চেপে রাখবেন না, এগুলি মেনে চললে দেখবেন মহিলা এবং ছেলেদের প্রসবের রাস্তায় ব্যথা দূর হয়ে যাবে। তাও যদি ভালো না হয় সেক্ষেত্রে একজন ডাক্তারের পরামর্শ নিন পাশাপাশি এই নিয়মগুলি অনুসরণ করুন।

শেষ কথা

আপনাদের এই আর্টিকেলে পুরুষের প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া কেন হয় এবং কি কি কারনে হয় এছাড়াও প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া ঔষধ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি যার মধ্যে কয়েকটি ওষুধের নাম উল্লেখ করেছে যে ওষুধগুলো একজন ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া কখনো খাবেন না। 

এছাড়াও আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া হলে কি করণীয় যেগুলো অনুসরণ করলে আপনি আপনার প্রস্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া কিছুটা হলেও কমবে। পুষ্টি যদি ভালো লেগে থাকে অন্যদের সাথে শেয়ার করবেন। এইরকম বিভিন্ন তথ্য সম্পর্কে জানতে হলে আমাদের ওয়েবসাইটে প্রতিনিয়ত চোখ রাখুন ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

Edu 360 BD নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url