দুবাই ভিজিট ভিসা খরচ ২০২৪ - দুবাই ভিজিট ভিসা কি বন্ধ জানুন

আপনি যদি সংযুক্ত আরব আমিরাতের যাত্রী হয়ে থাকেন অথবা সংযুক্ত আরব আমিরাত তথা দুবাইতে যেতে চাচ্ছেন বা দুবাইতে থেকে থাকেন তাহলে এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে কেননা আজকের এই আর্টিকেলে দুবাই ভিজিট ভিসা খরচ ২০২৪ এবং দুবাই ভিজিট ভিসা কি বন্ধ নাকি খোলা বিস্তারিত আলোচনা করব।
দুবাই ভিজিট ভিসা খরচ ২০২৪ - দুবাই ভিজিট ভিসা কি বন্ধ জানুন
যারা বর্তমান সময়ে দুবাই ভিজিট ভিসায় আসার চিন্তাভাবনা করছেন অথবা ভিজিট ভিসা এসে কোম্পানিতে কাজ করার চিন্তাভাবনা করছেন কিন্তু দুবাই ভিজিট ভিসা খরচ কত ২০২৪ এ? দুবাই ভিজিট ভিসা কি বন্ধ নাকি খোলা জেনে না থাকেন তাহলে এই আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন তাহলে দুবাই ভিজিট ভিসা সম্পর্কে সকল তথ্য জানতে পারবেন। 

দুবাই ভিজিট ভিসা ২০২৪

বর্তমানে সব ভিসা বন্ধ থাকলেও দুবাইয়ের ভিজিট ভিসা চলমান রয়েছে তবে আগে ভিসা দিত ৩ মাস মেয়াদে আর এখন দিচ্ছে ৩০ থেকে ৬০ দিন মেয়াদে। দুবাই ভিজিট ভিসা সাধারণত দুই ভাবে করা যায় প্রথমটি হচ্ছে নিজে অনলাইনে আবেদন করে এবং আরেকটি হচ্ছে কোন এজেন্সির মাধ্যমে।

অনেকের কাছে মনে হয় যে নিজে অনলাইনে আবেদন করে ভিজিট ভিসা পাওয়া ব্যয়বহুল এবং অনেক সময় অপচয় হয় তাই অনেকেই বিভিন্ন এজেন্সির সাথে যোগাযোগ করে দুবাই ভিজিট ভিসা আবেদন করে থাকে।


কিন্তু এজেন্সির মাধ্যমে দুবাই ভিজিট ভিসা করলেই যে অল্প খরচ হবে সেটা ভুল ধারণা কারণ বিভিন্ন এয়ারলাইন্সের ওপর নির্ভর করে সম্পূর্ণ খরচ কারণ এক একটি বিমানের টিকিটের মূল্য এক এক রকম হয়ে থাকে এছাড়া আপনি দুবাইতে গিয়ে কতদিন থাকবেন কেমন হোটেলে থাকবেন সেটার উপর নির্ভর করে খরচ তো চলুন তাহলে দুবাই ভিজিট ভিসার খরচ কত ২০২৪ সালে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

দুবাই ভিজিট ভিসা খরচ ২০২৪

বর্তমানে দুবাইতে ভিজিট ভিসায় আসতে কত টাকা খরচ হচ্ছে ভিজিট ভিসায় যদি আপনি নতুন আসতে চান তাহলে সব মিলিয়ে কত টাকা খরচ হতে পারে এই বিষয়ে আলোচনা করব। বাংলাদেশ থেকে দুবাই ভিজিট ভিসা করার জন্য আপনাকে কত টাকা এম্বাসি ফি দিতে হবে তা নিচে দেয়া হলঃ-
  1. আপনি যদি ৩০ দিনের জন্য সিঙ্গেল এন্ট্রি ভিসা নিতে চান তাহলে আপনাকে দিতে হবে ১৪,৫০০ টাকা এটার ক্ষেত্রে কন্ডিশন আছে আপনাকে অবশ্যই ৩৫ বছরের বেশি বয়স হতে হবে অর্থাৎ আপনি যদি ৩৫ বছরের বেশি বয়স হন তাহলে এই ভিসাটির জন্য এপ্লাই করতে পারবেন। 
  2. আপনি ৩০ দিনের জন্য আরেকটি সিঙ্গেল এন্টি ভিসা নিতে পারেন যদি আপনার বয়স ৩৫ বছরের কম হয় সেক্ষেত্রে আপনাকে এম্বাস ফি দিয়ে দিতে হবে ১৭,০০০ টাকা।
  3. আপনি যদি দুই মাসের সিঙ্গেল এন্টি ভিসা নিতে চান তাহলে খরচ হবে ২২,৫০০ টাকা।
  4. আপনি যদি ৩০ দিন অথবা এক মাসের জন্য মাল্টিপল এন্টি ভিসা নিতে চান তাহলে আপনার খরচ হবে ৩০,০০০ টাকা।
এগুলো হলো এম্বাসি ফি যেগুলো আপনাকে এম্বাসিতে ভিসা এপ্লাই করার সময় দিতে হবে আর যদি আপনি কোন এজেন্সির মাধ্যমে এপ্লাই করে থাকেন তাহলে আপনার ফি কিন্তু আরও বাড়বে অর্থাৎ সেই এজেন্সির ফি এবং আপনার যে ডকুমেন্ট প্রসেস করতে হবে সেগুলোর জন্য যদি আপনার কোন ডকুমেন্ট তৈরি করতে হয় সেটারও ফি যোগ হবে অর্থাৎ দুবাই ভিজিট ভিসার মোট কত টাকা খরচ হবে সেটা নির্ভর করবে আপনি কোন এজেন্সির মাধ্যমে ভিসা প্রসেসিং করছেন।

দুবাই ভিজিট ভিসা কি বন্ধ

দুবাই টুরিস্ট বা ভিজিট ভিসা সারা বছরই খোলা থাকে এবং এটি এখনো খোলা আছে কিন্তু দীর্ঘদিন যাবত বাংলাদেশের পাশাপাশি আরো বেশ কয়েকটি দেশে দুবাই ভিজিট ভিসা বন্ধ ছিল কিন্তু পুনরায় আবার চালু হয়েছে তাই যারা বাংলাদেশ থেকে দুবাই অথবা যেকোনো দেশ থেকে দুবাই ভিজিট ভিসায় যেতে চান তারা এপ্লাই করতে পারেন।

দুবাই ভিজিট ভিসা প্রসেসিং

যারা দুবাই শহরে ঘুরতে যাবেন অর্থাৎ ব্রোজ খলিফা দেখবেন পুরো ডুবাই শহর ঘুরবেন সেজন্য তো দুবাই ভিজিট ভিসা প্রয়োজন হবে কারণ ভিসা ছাড়া তো দুবাই শহরে যেতে পারবেন না। তাই দুবাইতে যেতে হলে আপনাকে ভিসা করাতেই হবে তাই এই অংশে আলোচনা করব দুবাই ভিজিট ভিসা প্রসেসিং করতে কি কি ডকুমেন্টস লাগবে। দুবাই ভিসা প্রসেসিং করতে যা যা ডকুমেন্ট লাগবে সেগুলি নিচে দেয়া হলঃ
  • একটি বৈধ পাসপোর্ট এবং ৬ মাস মেয়াদ থাকতে হবে।
  • দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ব্যাকগ্রাউন্ড সাদা ছবি প্রয়োজন হবে।
  • পাসপোর্ট এর ফটোকপি এবং মূল কপি প্রয়োজন হবে।
  • আগে যদি কোন দেশ ভ্রমণ করে থাকেন তাহলে সেটার ভিসা কপি প্রয়োজন হবে।
  • দুবাই আশা এবং যাওয়ার বিমান টিকিটের কপি লাগবে।
  • ৬ মাসের ব্যাংক স্টেটমেন্ট থাকবে।
  • ভ্রমণের কারণ উল্লেখ করে একটি লেটার প্রয়োজন হবে।
  • জাতীয় পরিচয় পত্র এবং জন্ম সনদের ফটোকপি প্রয়োজন হবে।

দুবাই ভিজিট ভিসা চেক করার নিয়ম

দুবাই ভিজিট ভিসা চেক করার জন্য আপনাকে প্রথমেই https://smartservices.icp.gov.ae/ এই ওয়েবসাইটে গিয়ে ভিজিট করতে হবে তারপর থ্রি ডট মেনু অপশন থেকে "Publice service" অপশনে ক্লিক করে "File Validity" লেখা আছে সেখানে ক্লিক করতে হবে তারপর "Passport Information" এ টিক দিয়ে Type : Visa দিয়ে পাসপোর্ট এর নাম্বার এবং বাকি তথ্য দিয়ে খুব সহজে দুবাই ভিজিট ভিসা চেক করতে পারবেন।

দুবাই ভিজিট ভিসা ২০২৪ আজকের খবর

আপনি যদি সত্যিকার অর্থে ভিজিট ভিসায় দুবাই ঘুরতে আসেন তাহলে আপনি আসতে পারেন আর যদি আপনার উদ্দেশ্য থাকে দুবাই ভিজিট ভিসাই এসে কাজ করবেন তাহলে আসার দরকার নেই এই চিন্তা বাদ দিন। কারণ আপনি ভিজিট ভিসাই এসে কাজের ভিসাই চেঞ্জ করতে পারবেন না। 


অর্থাৎ আপনি যদি ২০২৩ সালে ভিজিট ভিসায় গিয়ে থাকেন তাহলে কিন্তু ২০২৪ সালেও ভিজিট ভিসা থেকে অন্য কোন ভিসায় ট্রান্সফার হতে পারবেন না আপনার যদি ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যায় তারপরও কিন্তু ট্রান্সফার হতে পারবেন না। 

দুবাই ভিজিট ভিসা বের হতে কতদিন লাগে

অনেকেই জানতে চেয়ে থাকেন দুবাই টুরিস্ট বা ভিজিট ভিসা বের হতে কতদিন লাগে। ডুবাই ভিজিট ভিসা বের হতে সাধারণত ৭২ ঘন্টা সময় লাগে সর্বোচ্চ ২ দিন তার মধ্যে ভিসা বের হয়ে যায় আর দুবাই ভিজিট ভিসা করতে সাধারণত বৈধ পাসপোর্ট এবং রঙিন ছবি লাগে।

দুবাই ভিজিট ভিসার মেয়াদ কতদিন

দুবাই ভিজিট ভিসার মেয়াদ সাধারণত ৩ মাসের হয়ে থাকে তবে বর্তমানে এই সালে দুবাই ভিজিট ভিসা তিন মাসের জন্য দিচ্ছে না এর পরিবর্তে ১ মাস এবং ২ মাসের ভিসা দিচ্ছে এছাড়া আপনি চাইলে সেখানে গিয়ে ভিজিট ভিসার মেয়াদ বাড়িয়ে নিতে পারবেন তবে এর জন্য ৯৬০ দিরহাম ফি দিতে হবে।

শেষ কথা 

প্রিয় পাঠক আপনি যদি দুবাই ঘুরতে যাওয়ার উদ্দেশ্যে ভিসা করে থাকেন তাহলে যেতে পারেন আর যদি আপনি দুবাই ভিজিট ভিসা নিয়ে পরবর্তীতে ভিসা চেঞ্জ করে কাজের ভিসায় ট্রান্সফার হতে চান তাহলে আমি বলব আপনি এই চিন্তা বাদ দিন কারণ দুবাই এখন ভিজিট ভিসা থেকে কাজের ভিসায় বা অন্যান্য ভিসাই ট্রান্সফার হওয়া যায় না।

আজকের এই আর্টিকেলে দুবাই ভিজিট ভিসা খরচ কত ২০২৪ সালে এবং দুবাই ভিজিট ভিসা কি বন্ধ নাকি খোলা বিস্তারিত আলোচনা করেছি। আশা করি আপনি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়েছেন আপনার যদি কোন প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে নিচে কমেন্ট করে আমাদেরকে জানাতে পারেন ধন্যবাদ।


এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

Edu 360 BD নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url