মারভেলন পিল খাওয়ার নিয়ম, কেমন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া জেনে নিন

আজকের আর্টিকেলে মারভেলন পিল কেন ব্যবহার করবেন কিভাবে ব্যবহার করবেন এবং মারভেলন পিল খাওয়ার নিয়ম ও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সকল বিষয়ে আপনাদের সাথে আলোচনা করব। মারভেলন পিল মূলত একটি ওষুধ যা গর্ভধারণ নিয়ন্ত্রণে ব্যবহার হয়। তাই আপনারা যারা মারভেলন পিল কেমন এবং মারভেলন পিল খাওয়ার নিয়ম, অপকারিতা সম্পর্কে জানেন না তাদের জন্য আজকের এই পোস্টটি।

বাজারে বিভিন্ন ধরনের গর্ভধারণ নিয়ন্ত্রণ পিল পাওয়া যায় কিন্তু সবচেয়ে ভালো পিল হচ্ছে মারভেলন পিল যা আমরা অনেকেই ব্যবহার করে থাকি এবং অনেকেই অজানা তাই মারভেলন পিল কেমন এবং মারভেলন পিল খাওয়ার নিয়ম, পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সকল খুঁটিনাটি বিষয়ে আপনাদের জানানোর চেষ্টা করব তাই এই পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়তে থাকুন। 

মারভেলন পিল কেমন

বিভিন্ন প্রকারের পিল পাওয়া যায় বাজারে তার ভিতরে অত্যাধিক অন্যতম সেরা হচ্ছে মারভেলন পিল। গর্ভধারণ নিয়ন্ত্রণ এই ট্যাবলেটি সঠিকভাবে খেলে গর্ভধারণের কোন ঝুঁকি নেই বললেই চলে আপনি চাইলে গর্ববস্থায় রোধ করতে এই বিলটি ব্যবহার করতে পারেন। মারভেলন পিলটিতে মহিলাদের দুই ধরনের হরমোন রয়েছে প্রোজেস্টোজেন এবং ইস্ট্রোজেন। 


এই হরমোন দুটি আপনার ডিম্বাশয় থেকে একটি ডিম নিঃসৃত হতে বাধা সৃষ্টি করে যাতে আপনি গর্ভবতী না হন। এবং এটি অনেক সুযোগ সুবিধা রয়েছে যেমন মাসিকের সময় কম বেদনাদায়ক এবং হালকা করে তোলে।

মারভেলন পিল খাওয়ার নিয়ম

যেসব নারীরা আগে থেকেই মারভেলন পিল খাচ্ছেন তারা অনেক কিছু জানতে পারবেন আর যারা গর্ভধারণ প্রতিরোধে নিতে চাচ্ছেন বা ডাক্তার আপনাকে সাজেস্ট করেছে এবং অনেকে আছেন যারা কিনা মারভেলন পিল খাওয়ার সঠিক নিয়ম জানেন না তাদের জন্য আর্টিকেলটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।চলুন তাহলে মারভেলন পিল খাওয়ার নিয়ম গুলো জেনে নেওয়া যাক। 

মারভেলন পিল মোট ২১ টি ট্যাবলেট থাকে এবং প্রতিটি ট্যাবলেটের সাথে বারের নাম উল্লেখ করা আছে ওই বার গুলো অনুযায়ী প্রতিদিন একটা করে একই সময় খেতে হবে।

যতদিন না আপনার গোটা পাতাটা সব ট্যাবলেট খাওয়া শেষ না হবে ততদিন খেতেই থাকতে হবে। ২১ টি ট্যাবলেট খাওয়া শেষ হয়ে গেলে পরে আর সাত দিন আপনার কোন ট্যাবলেট খাওয়া লাগবে না কারণ শেষের সাত দিনের মধ্যে কোন একদিন আপনার মাসিক শুরু হয়ে যাবে। 

সাধারণত ২১টি ট্যাবলেট খাওয়ার দুই তিন দিন পরে মাসিক শুরু হয়ে যায় এক কথায় বলতে গেলে প্রথম পাতা ট্যাবলেট গুলো শেষ করার পর সাত দিন গ্যাপ দিয়ে মাসিক ভালো হলেও এবং না হলেও আপনাকে নতুন পাতা মারভেলন পিল খাওয়া শুরু করতে হবে। আপনি যদি নির্দিষ্ট কোন সময়ে মারভেলন পিল খাওয়া ভুলে যান সে ক্ষেত্রে যখনই মনে আসবে তখনই খেয়ে নিতে হবে 

তবে ১২ ঘণ্টার যদি বেশি হয়ে যায় তাহলে কার্যক্ষমতা কমে যেতে পারে তাই চেষ্টা করবেন মারভেলন পিল নিয়মিত একটি নির্দিষ্ট সময় খাওয়ার আপনার সুবিধার্থে আপনার ফোনে এলালাম দিয়ে রাখতে পারেন যাতে মারভেলন পিল খেতে ভুলে না যান। আশা করি মারভেলন পিল খাওয়ার নিয়ম গুলো সঠিকভাবে বুঝতে পেরেছেন।

মারভেলন পিলের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

এখন আসুন জেনে নেওয়া যাক প্রথম প্রথম মারভেলন পিল খেলে কি কি লক্ষণ দেখা দিতে পারে এবং মারভেলন পিলের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছি কিনা এবং কি কি সেগুলো সম্পর্কে। যদি কেউ প্রথমবার মারভেলন পিল খান তবে কিছু অস্বস্তিকর সাধারণ লক্ষণ দেখা দিতে যা অতটা মারাত্মক নই। প্রথম কয়েক মাস এই লক্ষণগুলি দেখা দিতে পারে দিয়ে পরে আবার এমনি ঠিক হয়ে যেতে পারে যেমন
  • স্তনে ব্যথা
  • স্তন থেকে হালকা দুধ বের হতে পারে
  • মাথা ব্যথা
  • মানসিক অবসাদ হতে পারে
  • বমি হওয়ার বা হালকা বমি বমি ভাব 
  • মাসিকের রাস্তা দিয়ে সাদা স্রাব পড়তে পারে
  • শরীরের ওজনে কিছু পরিবর্তন দেখাতে পারে
  • ত্বকে সমস্যা দিতে পারে

উপরের এই লক্ষণ গুলি খুবই সাধারণ এগুলো এমনি এমনি ঠিক হয়ে যায় তবে কিছু লক্ষণ রয়েছে যেগুলো দেখা দিলে সাথে সাথেই মারভেলন পিল খাওয়া বন্ধ করে দিতে হবে এবং একজন ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে সেই লক্ষণ গুলো হলঃ
  • তীব্র মাথাব্যথা
  • চোখে ঝাপসা দেখা
  • কানে শুনতে অসুবিধা
  • মাথা ঘুরে পড়ে যাওয়া
  • পায়ে তীব্র ব্যথা বা পা ফুলে যাওয়া
  • শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যা
  • খাবারের প্রতি অরুচি

মারভেলন পিল খাওয়ার অপকারিতা

মারভেলন পিল খাওয়ার কিছু ছোট ছোট অপকারিতা রয়েছে যেগুলো এ অংশে আমরা আলোচনা করব আপনাদের সাথে। ধরুন যখন আপনি মারভেলন পিল বা যেকোন পিল খাওয়া শুরু করলেন এটা আপনার শরীরের সাথে মানিয়ে নিতে কিছুটা সময় নেই কারণ এটা একটি বাইরের হরমোন যা আপনি আপনার শরীরে প্রবেশ করাচ্ছেন। 

বাইরে থেকে তো অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় আপনি যখন মারভেলন পিল খাওয়া শুরু করেন একটু অনিয়মিত ব্লিডিং এবং স্পোর্টিং হতে পারে প্রথম ৩ মাস এবং আস্তে আস্তে এটি শরীরের সাথে একজাস্ট হয়ে যায়। এবং আপনি যদি মারভেলন পিল খাওয়ার পর অন্য সমস্যা লক্ষ্য করেন তবে একজন ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

পিল আরো কিছু সমস্যা বাড়ায় কারো যদি রক্তনালীতে রক্ত জমাট বেড়ে যায় বেশি এই ঝুঁকি গুলো পিল বাড়িয়ে থাকে। আর যাদের ডায়াবেটিস রয়েছে এবং প্রেসার রয়েছে অথবা কারো ব্রেস্টে ক্যান্সার রয়েছে তারা অবশ্যই পিল খাবেন না। এছাড়াও যাদের অতিরিক্ত মাথাব্যথা হয় তারা একজন ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে পিল খাবেন। আশা করি মারভেলন পিল খাওয়ার অপকারিতা গুলো বুঝতে পেরেছেন।

মারভেলন পিল খাওয়ার কতদিন পর মাসিক হয়

মারভেলন পিল প্যাকেটটির ভিতর মোট ২১ টি ট্যাবলেট রয়েছে এবং প্রতিটি ট্যাবলেট এর ওপর বার উল্লেখ করা আছে কোন বারে কোন ট্যাবলেটটি খেতে হবে সেই অনুসারী ২১ টি ট্যাবলেট খাওয়া শেষ করার পর পরের সাত দিন কোন ট্যাবলেট খেতে হবে না।


এবং সেই সাত দিনের ভিতরেই আপনার যেকোন মাসিক হতে পারে। সাধারণত ২১ টি ট্যাবলেট শেষ করার পর ২ থেকে ৩ দিন পরে মাসিক শুরু হয়ে যায়। আশা করি তাহলে মারভেলন পিল খাওয়ার কতদিন পর মাসিক হয় আপনার প্রশ্নের উত্তর টি পেয়ে গেছেন।

মারভেলন পিল দাম

নূতিশতা ফার্মা লিমিটেড কোম্পানি মারভেলন পিল আপনারা যে কোন দোকানে অথবা ফার্মেসীতে পেয়ে যাবেন। এই মারভেলন পিলটির মূল্য এক থাকে না উঠা নামা করে তাই মারভেলন পিলের দাম জানা দরকার।বর্তমানে মারভেলন পিল দাম হচ্ছে ১০৫ টাকা যার ভিতর রয়েছে ২১ টি ট্যাবলেট।

শেষ কথা

মারভেলন পিল খাওয়ার আগে অবশ্যই একজনের ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন। এবং আপনার যদি প্রেসার এবং ডাইবেটিস থেকে থাকে তবে কোন ধরনের পিল খাওয়া আপনার জন্য উচিত হবে না। আজকের এই আর্টিকেলে মারভেলন পিল খাওয়ার নিয়ম এবং মারভেলন পিল কেমন এই সম্পর্কে আপনাদের জানিয়েছি।

এছাড়াও মারভেলন পিল খাওয়ার কতদিন পর মাসিক হয় আরো অনেক ধরনের প্রশ্নের উত্তর দিয়েছি আশা করি আপনি সবকিছু বুঝতে পেরেছেন আপনি যদি না বুঝে থাকেন এবং যদি কোন প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে আমাদেরকে নিচে কমেন্টে জানাতে পারেন এবং এই পোস্টটি যদি আপনার ভালো লেগে থাকে অন্যদের সাথে শেয়ার করবেন আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

Edu 360 BD নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url